আজ ৬ই অক্টোবর, ২০২২, দুপুর ২:০০

কুমিল্লা নবনির্মিত কার্যালয় উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নেকবর হোসেন কুমিল্লা প্রতিনিধি।

কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের নবনির্মিত কার্যালয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আমি কুমিল্লা নামে বিভাগ দেব না, কারণ কুমিল্লা নামের সঙ্গে খুনী মোসতাকের নাম জড়িত। এছাড়া চাঁদপুর নোয়াখালী লক্ষ্মীপুর, ফেনী ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাগুলো কুমিল্লা নামের সঙ্গে যুক্ত হতে চাচ্ছে না। তাই কুমিল্লা বিভাগ হবে ‘মেঘনা’ নামে। আর ফরিদপুর নয়, ‘পদ্মা’ নামে বিভাগ করার প্রস্তাব রাখছি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের নবনির্মিত কার্যালয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এ কথা বলেন সরকার প্রধান। নতুন দুটি বিভাগ করার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন পদ্মা মেঘনা যমুনা- তোমার আমার ঠিকানা’ এ স্লোগান দিয়ে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ করেছে এবং বিজয় অর্জন করেছে। কাজেই কোনো জেলার নামে বিভাগ হবে না। তাই আমি কুমিল্লা নয়, মেঘনা নামে এবং ফরিদপুর নয়, পদ্মা নামে বিভাগের প্রস্তাব করছি।

ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের অন্যদিক কুমিল্লায় যুক্ত ছিলেন কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সদর আসনের এমপি হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর কাছে কুমিল্লা নামে বিভাগের দাবির যৌক্তিকতা তুলে ধরে বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর নামে পরিচিত। এ কুমিল্লা খুনী খন্দকার মোসতাকের নামে পরিচিত নয়।

এ কুমিল্লা ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত, কাজী নজরুল, শচীন দেব বর্মন, নওয়াব ফয়জুন্নেছা, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিধন্য কুমিল্লা হিসেবে পরিচিত। কুমিল্লার ৫৮ লাখ লোকের প্রাণের দাবি কুমিল্লা নামেই বিভাগ হোক।’ এ সময় সেখানে উপস্থিত জেলার আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি ও নেতারা হাত নেড়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে কুমিল্লা নামে বিভাগ ঘোষণার দাবি জানান।

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন কুমিল্লায় যে ঘটনাটি ঘটে গেছে সেটা বড়ই দুঃখজনক। মানব ধর্মকে সম্মান করা ইসলামের শিক্ষা। নিজের ধর্ম পালনের অধিকার যেমন সবার আছে, অন্যের ধর্মকেও কেউ হেয় করতে পারে না। এটা ইসলামের শিক্ষা। নিজের ধর্মকে সম্মান করার পাশাপাশি অন্যের ধর্মকেও সম্মান দিতে হবে। অন্যের ধর্মকে অবমাননা করতে গিয়ে পবিত্র কোরআন শরীফকে অবমাননা দুঃখজনক। আমি এটাই বলবো, যার যার নিজের ধর্মের সম্মান নিজেকে রক্ষা করতে হবে। আইন কেউ নিজের হাতে তুলে নেবেন না।

যদি কেউ অপরাধ করে তিনি যেই হোক তার বিচার হবে, আমাদের সরকার সেই বিচার করবে। আমরা সকলেই শান্তি চাই। ধর্ম নিয়ে কেউ বাড়াবাড়ি করবেন না। প্রত্যেক ধর্মই শান্তির কথা বলে। বাংলাদেশে আমরা যুগ যুগ ধরে অসাম্প্রদায়িক সমাজে বসবাস করছি।
আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, ‘উন্নয়নের ছোঁয়া শুধু শহরে নয়, গ্রামভিত্তিকও উন্নয়ন হচ্ছে। কারও কাছে ভিক্ষা চেয়ে আমরা চলবো না। গ্রামগুলোতে যেন নাগরিকরা সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা পায়, দেশের মানুষ যাতে সুন্দরভাবে বসবাস সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা হয়েছে মানুষের সেবা করার জন্য। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের নেতাকর্মীরা মানুষের জন্য কাজ করবে। আমি মানুষকে মানুষ হিসেবে দেখি।’

তিনি বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে দেশ যে এগিয়ে যাচ্ছে, তা একটা শ্রেণির লোকদের কাছে পছন্দের নয়। বিএনপি-জামায়াতের তো মোটেই নয়। খালেদা জিয়ার মনে সবসময় পেয়ারে পাকিস্তান, তিনি পাকিস্তান নিয়ে থাকতে ভালোবাসেন অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি, অ্যাডভোকেট আবুল হাসেম খান এমপি, ইউসুফ আবদুল হারুন এমপি, ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত এমপি নাসিমুল আলম চৌধুরী নজরুল এমপি এ্যারোমা দত্ত এমপি,মহানগরের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাতসহ।

দলীয় নেতা ও নানা শ্রেণি-পেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন। পরে প্রধানমন্ত্রী নগরীর কান্দিরপাড় এলাকায় কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের নবনির্মিত ৯ তলা মহানগর আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের অফিস উদ্বোধন করেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

আরো পড়ুন

সর্বশেষ খবর

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১